রিং আইডি কি তাহলে চলে গেল?? এই মাত্র পাওয়া নতুন খবর... -

রিং আইডির গ্রাহক দের বিচলিত মনভাব এবং রিং আইডি চলে যাওয়ার ভয় দেখে The Daily Sunlight রিং আইডির এক বিশ্বস্ত উপর মহলের কর্মকর্তার সাক্ষাৎকার নেয়। সেখানে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেনরিং আইডি একটি সর্বজনীন সামাজিক নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম। যা ব্যবহারকারীরা তাদের প্রয়োজনীয় সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবেন। এটি ফোন কল, টেক্সট মেসেজিং এর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয় বরং তারা তাৎক্ষণিক বার্তা, ভয়েস এবং ভিডিও কল, নিউজফিড ইত্যাদিকে সেবা দিয়ে থাকে। রিং আইডি কানাডার মন্ট্রিয়েল সিটিতে অবস্থিত ‘‌রিং ইনকর্পোরেশন’ দ্বারা পরিচালিত একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। কানাডা প্রবাসী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আইরিন ইসলাম ও শরিফ ইসলামের যৌথ উদ্যোগে যার যাত্রা শুরু। ব্যবহারকরীগণ তাদের আইডি ব্যবহার করে বিশ্বব্যাপী যোগাযোগ রক্ষা করতে পারেন।

কমিউনিটি জব কি থাকবে? মেম্বার দের কি হবে?

উত্তরে তিনি আরো বলেন, আপাতত আমাদের সার্ভার এ উন্নতি করার লক্ষে কাজ চলছে। গ্রাহক রা যেন বিচলিত না হয় সেজন্য আমরা ঘন্টায় ৫ টি করে অ্যাড দিচ্ছি। এবং ক্যাশ আউট সিস্টেম এ বিরাট পরিবর্তন আনার জন্য আমরা এটি কিছুটা শিথিল করেছি। আমি সবাই কে অনুরোধ জানাচ্ছি , বিচলিত না হয়ে সবাই ধৈর্য ধরুন। ইনশাআল্লাহ ভালো কিছু অপেক্ষা করছে আপ্নাদের জন্য। গুজবে কান দিবেন না এবং গুজব ছড়াবেন না। এতে সাধারন জনগণ এর মনে রিং আইডির প্রতি ভয় কাজ করে। আমরা চায় বাংলাদেশের বেকারত্ত সমস্যা দূর করতে।

গ্রেফতার এর ঘটনা কি সত্যি? কিন্তু কেন?

The daily Sunlight অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ Ring Id’র একজন অফিসিয়াল কর্মকর্তার ভাষ্য মতে,

রিং আইডি থেকে প্রথমে বিষয়টি কনফার্ম করতে চাই আমাদের অফিস থেকে কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। মূলত এখানে সত্য ঘটনা হলো, প্রায় দুই মাস আগে যখন মেম্বারশিপ এর দাম 22000 টাকা ছিল তখন একজন গ্রাহক 22000 টাকা পেমেন্ট করে রিং আইডি মেম্বারশিপ এর জন্য তার দাবি অনুযায়ী তার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নিয়ে যায় এবং মেম্বারশিপ চালু হয়নি এখানে মূলত যখন এজেন্টের মাধ্যমে মেম্বারশিপ এর জন্য পেমেন্ট করার অপশন ছিল না তখন এরকম বেশ কিছু সমস্যা হয়েছে। আমরা প্রায় সবগুলো সমস্যা সমাধান করেছি যারা আমাদের কাছে রিপোর্ট করেছিল তাদের টাকা কেটে নিয়ে গেছে কিন্তু মেম্বারশিপ চালু হয়নি আমরা তাদের সমস্যার সমাধান করেছি। উনি আমাদের কাছে কোন রিপোর্ট করেন নি

উনি সরাসরি রিং আইডি নামে মামলা করেছে এ কারণে দিনের গুলশান প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক সাইফুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হয় এখানে আরেকটি বিষয় কনফার্ম করতে চাই আপনারা সবাই অবগত আছেন আমাদের রিং আইডির Co-Founder নাম শরিফুল ইসলাম আর সাইফুল ইসলাম শুধুমাত্র প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক। “রিং আইডির মালিক গ্রেপ্তার হয়েছে” এই শিরোনামে যারা নিউজ তৈরি করতেছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। আশা করি আপনারা অতীত এ যেভাবে রিং এর পাশে ছিলেন এখনো ঐভাবে পাশে থাকবেন। এই দুঃসময়ে আপনারা পাশে না থাকলে পরিস্থিতি আরও বাজে হবে। আমি সবাই কে অনুরোধ জানাচ্ছি , বিচলিত না হয়ে সবাই ধৈর্য ধরুন। ইনশাআল্লাহ ভালো কিছু অপেক্ষা করছে আপ্নাদের জন্য। গুজবে কান দিবেন না এবং গুজব ছড়াবেন না। এতে সাধারন জনগণ এর মনে রিং আইডির প্রতি ভয় কাজ করে। আমরা চায় বাংলাদেশের বেকারত্ত সমস্যা দূর করতে। ধন্যবাদ।

Leave a Reply